তরুণ উদ্যোক্তা সফল হওয়ার কিছু পরামর্শ

0
377

আপনি যদি মনে করেন তরুন বয়সেই সফল ব্যবসা শুরু করবেন তাহলে আপনাকে কিছু অভিজ্ঞতা অর্জন করতে হবে। আপনি যেহেতু তরুণ উদ্যোক্তা হিসেবে শুরু করতে চান তাই আপনাকে ব্যবসা শুরু করার জন্য কিছু পরামর্শ নিতে হবে। তবে শিক্ষা, অর্থায়ন ও সামাজিক সীমাবদ্ধতার কারণে ব্যবসা শুরুর পথে আপনি নানা প্রতিবন্ধকতার শিকার হতে পারেন। তাই আপনাকে হতাশ হলে চলবে না। আমরা আপনাকে কিছু প্রয়োজনীয় পরামর্শ প্রদান করব যাতে আপনি সহজে তরুণ উদ্যোক্তা হিসেবে ব্যবসায় সফল হতে পারেন।

তরুণ উদ্যোক্তাদের শিক্ষাগত সীমাবদ্ধতা

এমনকি আপনি যদি এক ক্লাসও না পড়ে থাকেন তার জন্য যে আপনি ব্যবসা শুরু করতে পারবেন না তেমন নয়। আমরা ক্লাসের মধ্যে যা শিখি তা চারপাশের জগতে প্রয়োগ করা অত্যন্ত কঠিন ব্যাপার। আমরা হাই স্কুলে যা শিখেছি আর ব্যবসায় সম্পর্কে এক সপ্তাহ ক্লাস করা একই সমান। আমরা আমাদের পাঠ্য বইয়ে বা ক্লাসে যা শিখেছি তা নির্দিষ্ট গন্ডিতে সীমাবদ্ধ। তাই যুবক বয়সেই ব্যবসা শুরু করতে চাইলে আপনাকে চারপাশের পরিবেশ থেকে বাস্তবসম্মত শিক্ষা অর্জন করতে হবে।

তরুণ উদ্যোক্তাদের আর্থিক সীমাবদ্ধতা

প্রত্যেক উচ্চাকাঙ্খি উদ্যোক্তাদের ব্যবসা শুরু করার জন্য প্রথমে অর্থের সমস্যায় পরতে হয়। প্রত্যেকের কাছেই এটি অপ্রত্যাশিত। যেহেতু তারা যুবক বয়সেই উদ্যোক্তা হিসেবে শুরু করতে চান তাই প্রাথমিক ভাবে তাদের অর্থের সমস্যায় পরাটাই স্বাভাবিক। তবে হতাশ হওয়ার কিছু নাই। প্রথমে আপনাকে বিনিয়োগ ফি বা লাইসেন্সিং এর জন্য অর্থ খোঁজার প্রয়োজন যা অত্যন্ত কঠিন পরিস্থিতিতে ফেলতে পারে। তাই আপনি এমন সব অংশীদারের খোঁজ করুন যারা আপনাকে বিশ্বাসের সাথে কিছু টাকা বিনিয়োগের আশ্বাস দিতে পারে। সময়মত টাকা পরিশোধের কঠিন পদক্ষেপও আ্পনাকে নিতে হবে। স্বার্বিক ভাবে পুরো অর্থায়ন প্রক্রিয়াটিই অস্বাভাবিকভাবে কঠিন হতে পারে।

তরুণ উদ্যোক্তার সামাজিক সীমাবদ্ধতা

মনে করুন আপনি পৃথিবীর সবচেয়ে ধনী আর দক্ষ ব্যাক্তি কিন্তু আপনি একটি কোম্পানী খুলতে পারছেন না। কারণ আপনার বয়স ১৮ এর নিচে। আপনি আপনার ব্যবসায়ের জন্য ফাইল, অ্যাকাউন্ট বা ক্রেডিট কার্ড খোলা প্রয়োজন হতে পারে। কিন্তু এটি সম্ভব হচ্ছে না আপনার বয়সের কারণে। মূলত এটি একটি সমস্যাই নয় এটি অবৈধও বটে।

তরুণ উদ্যোক্তাদের জন্য কিছু পরামর্শ

তুমি যা ভালবাস তাই কর

যেটাকে আপনি ভালবাসেন না সেটা আপনি কখনই করতে যাবেন না। যদি আপনি টাকা আয়ের জন্য ব্যবসা শুরু করতে চান তাহলে আপনাকে চেষ্টা করতে হবে সৃষ্টিশীল আর পরিবর্তনের সাথে কাজ করার। আপনি যেই কাজটি করতে ভালবাসেন সেটির খোঁজ করুন আর সেই অনুপাতেই আপনি আপনার পন্য উৎপাদন করুন। একটি কোম্পানী শুরু করতে আপনাকে কিছু উপায় বের করতে হবে। আর সেই উপায় গুলো বের করতে গিয়ে আপনার যেই কাজটি করতে কঠিন মনে হবে তা বাদ দিয়ে দেন।

সহজ পন্থায় সহজ উপায় গুলো অনুসরন করেই আপনি আপনার যুবক বয়সেই একটি কোম্পানী শুরু করতে পারেন। আপনি যদি দীর্ঘমেয়াদী উদ্যোক্তা হিসেবে আপনার ব্যবসাটি পরিচালনা করতে চান তাহলে আপনাকে অবশ্যই ধৈর্য্য সহকারে কাজ গুলোর সাথে নিজেকে সম্পৃক্ত করতে হবে। তবেই আপনি একজন সফল যুবক উদ্যোক্তা হয়ে উঠতে পারবেন।

নেটওয়ার্ক ও দৃঢ়তা

বিভিন্ন অনলাইন নেটওয়ার্কিং সাইট গুলোর সাথে নিজেকে পরিচিত করতে হবে এবং সেখানে আপনি বিশে^র নতুন নতুন পেশাদারী অংশীদারের সাথে নিজেকে সম্পৃক্ত করতে পারবেন। আপনি এমন সব পরামর্শ দাতাকে খোঁজ করুন যারা আপনাকে আপনার ব্যবসা সম্পর্কে ভাল পরামর্শ প্রদান করবে। আর সেখানে আপনাকে যে কঠিন সমস্যায় পরতে হবে না তেমন নয়। তার জন্য আপনাকে সকল পতিবন্ধকতার মুখোমুখি হতে নিজেকে প্রস্তুত রাখতে হবে। এটা মনে রাখবেন একজন ভাল পরামর্শ দাতা কিন্তু আপনার একজন ভাল শিক্ষকও বটে। ব্যবসায় ব্যর্থতা আসতে পারে তাই বলে নিজেকে ফিরিয়ে আনা ঠিক হবে না।

শিথিল শান্ত থাকুন

আপনাকে সফলতার জন্য অবশ্যই কঠোর পরিশ্রম করতে হবে। আপনি যখন কাজটি অতি গুরুত্বের সাথে শুরু করবেন তাহলে প্রথমে আপনি বিশ্রাম করার সুযোগ নাও পেতে পারেন। তাই বলে আপনি পিছিয়ে যাবেন না। আপনি অতিরিক্ত পরিশ্রমের বিনিময়েই কাজটি সফল করতে পারবেন। অনেক লোকই তাদের যুবক বয়সেই ব্যবসা শুরু করেছে এবং তারা তাদের লক্ষ্যে পৌঁছানোর জন্য অধিক পরিশ্রম করেছে। তারা তাদের উপর আত্মবিশ^াস স্থাপন করেই ব্যবসায় সফল হয়েছেন। বিশে^ যেই সব যুবক সফল হয়েছেন তারা বিনা পরিশ্রমে এই সফলতা পান নাই। প্রথমে অনেকে ছোট কোম্পানীর হয়ে কাজ করে অভিজ্ঞতা অর্জন করেছেন। তারপর পরিশ্রমের বিনিময়ে ব্যবসায় সফলতা অর্জনের মাধ্যমে আজ তারা বড় বড় কোম্পানীর মালিক। তাই আপনি চাইলে সেই সব লোকদেরই অনুকরণ করে আপনার ব্যবসায় সফলতা আনতে পারেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here