ভিজিটিং র্কাড প্যাড ছাপানোর ব্যবসা শুরু করতে হবে

0
398
ভিজিটিং র্কাড প্যাড ছাপানোর ব্যবসা

ভিজিটিং র্কাড প্যাড ছাপানোর ব্যবসা

সভ্যতা ও যোগাযোগ মাধ্যম এর আধুনিকায়নের সাথে সঙ্গতি রেখে ভিজিটিং কার্ডপ্যাড ইত্যাদি জিনিসগুলোর চাহিদা বেড়েই চলেছে। গুরুত্বের দিক বিবেচনায়ও ভিজিটিং কার্ডপ্যাড মহামূল্যবান যোগাযোগ মাধ্যম। কেননাবিভিন্ন সরকারী বেসরকারী অফিস আদালতের কর্মকর্তা ও দায়িতপাপ্ত ব্যাক্তিব্যবসায়ি ও অন্যান্য সামাজিক কর্মকান্ডে লিপ্ত ব্যক্তিবর্গের কমঠিকানামোবাইল নাম্বার ইত্যাদি খুব সুন্দর ভাবে উল্লেখ থাকে ভিজিটিং কার্ডপ্যাডের মধ্যে। ফলে ঐসব ব্যাক্তির দক্ষতাপদবি ও ঠিকানা খুব সহজেই সেবা গ্রহীতারা জানতে পারে।

একজন উদ্যোক্তা এই ব্যবসাটি শুরু করে সহজেই স্বাবলম্ভী হতে পারেন। এটি লাভজনক একটি ব্যবসা হিসেবে শিক্ষিত ও অর্ধ-শিক্ষিত যুবকদের নিকট জনপ্রিয়তা লাভ করছে। কম্পিউটারের উপর দক্ষতা ও অভিজ্ঞতা এবং স্বল্প মূলধন নিয়ে গ্রাহকদের চাহিদার নিরিখে ব্যবসাটি পরিচালনা করা যেতে পারে। ট্রেসিং পেপারের উপর নিদিষ্ট নিজাইনের এই কাজটি করা হয়।

অবস্থান: এই ব্যবসাটি শুরু করতে বেশি জায়গার প্রয়োজন হয় না। বাজারে কিংবা মার্কেটের পাশে ছোট একটি দোকানে এই ব্যবসাটি শুরু করা যায়। তবে যেখানে মানুষের যাতায়াত বেশি সেখানে এই ব্যবসাটি শুরু করলে ভালো হয়।

কেন ভিজিটিং র্কাড ব্যবসা শুরু করবেন

এই ব্যবসাটিতে লাভের পরিমান মন্দ নয়। স্বল্প টাকা বিনিয়োগ করে অতি সহজেই এই ব্যবসাটি শুরু করা যায়। এই ব্যবসাটিতে কোনো রকম ঝুঁকি নেই বললেই চলে। এই ব্যবসাটির মাধ্যমে অনেক মানুষ তার জীবিকা নির্বাহ করছে। এই ব্যবসাটির চাহিদা অনেক বেশি। যার জন্য অনেক নতুন ও তরুণ উদ্যোক্তা এই ব্যবসাটি শুরু করতে চায়। এই ব্যবসাটি শুরু করতে বেশি পরিশ্রমের প্রয়োজন হয় না। খুব কম সময়ে ভিজিটিং কার্ড তৈরী করা যায়।

 

ভিজিটিং র্কাড ব্যবসা সম্ভাব্য পুজিঁ: এই ব্যবসাটি শুরু করতে আনুমানিক ১০০০০০ টাকা বিনিয়োগ করতে হবে।

কিভাবে শুরু করবেন: প্রথমে গ্রাহকদের চাহিদা মোতাবেক কম্পিউটারে ডিজাইন করতে হবে। তারপর ট্রেসিং পেপারে প্রিন্ট করে নিতে হবে। প্রিন্ট করার পর নির্দিষ্ট আকারে কেটে গ্রাহকদের সরবরাহ করতে হবে। প্যাডও একই ভাবে তৈরী করা হয়।

 

যোগ্যতা: এই ব্যবসাটি শুরু করতে হলে গ্রাফিক্স ডিজাইনের কাজ জানতে হবে। সৃজনশীল উদ্যোক্তারা সহজেই এই ব্যবসায় সফল হতে পারেন।

সম্ভাব্য আয়: এই ব্যবসাটি শুরু করে মাসিক ১৫ হাজার টাকা থেকে ৩০ হাজার টাকা আয় করা সম্ভব।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here