সঠিক ব্যবসা পরিকল্পনা লিখবেন যেভাবে

0
234
ব্যবসা পরিকল্পনা লিখতে যা করতে হবে এবং যা করা যাবে না

ব্যবসা পরিকল্পনা লিখতে যা করতে হবে এবং যা করা যাবে না

একটি ব্যবসায়িক পরিকল্পনা হল একটি রাস্তায় ভ্রমণপথ রূপরেখার মতো। অর্থাৎ ব্যবসায় উন্নতি করতে হলে ধাপে ধাপে একটি মানচিত্র অনুসরণ করতে হবে। সফলতার জন্য একটি ব্যবসা পরিকল্পনা অবশ্যই অত্যাবশ্যক। কারণ এটি সফলতার জন্য আপনার ব্যবসাটিকে সঠিক পথে পরিচালিত করে। আপনি আপনার ব্যবসাটিকে কোথায় নিয়ে যেতে চান এবং কিভাবে নিয়ে যাবেন, তার রুপরেখা ঠিক করতে পরিকল্পনার বিকল্প নেই। এর মাধ্যমে একজন ব্যবসার মালিক জানতে পারবেন কিভাবে তিনি সঠিক দিক নির্দেশনা পেতে পারেন এবং তার চুড়ান্ত গন্তব্যস্থল থেকে কত দূরে।

আপনার ব্যবসা পরিকল্পনা আপনাকে শুরু থেকে একটি পক্রিয়া জুড়ে পরিচালিত করবে। বিশেষজ্ঞদের পরামর্শের উপর ভিত্তি করে ব্যবসা পরিকল্পনা প্রণয়ন করার সময় যা করতে হবে এবং যা করা যাবে না তা নিয়ে নিচে আলোচনা করা হল।

 

আপনার ধারণাটি পরীক্ষা করুন, লাফ দিয়ে নেমে যাবেন না।

যদি আপনি সাগ্রহে একটি ব্যবসা শুরু করতে চান তাহলে আপনি আপনার ব্যবসার ধারণাট পরক্ষিা করতে পারেন। এজন্য আপনি আপনার শিল্পের সম্ভাব্য গ্রাহক, সরবরাহকারী ও জড়িত অন্যান্যদের সাথে কথা বলতে পারেন। এমনকি আপনাকে ব্যবসাটি শুরু করার পর মুনাফা লাভের পূর্বে গ্রাহকদের আর্কষণও ধওে রাখা নিশ্চিত করতে হবে। যে কোন ব্যবসায় সফলতা লাভ করার প্রথম ও পূর্ব শর্ত হচ্ছে আপনার ধারণাটি বাস্তবতার নিরীখে পরাীক্ষিত হতে হবে।

আপনার বাজার গবেষণা করুন, অন্ধ হয়ে যাবেন না।

যে কোন ব্যবসা প্রকল্পে, গবেষণা একটি কঠিন ব্যবসা পরিকল্পনা তৈরিতে সহায়ক হতে পারে। একটি ব্যবসা পরিকল্পনা লেখায় গবেষণা একটি বড় মান যোগ করতে পারে। গবেষণা ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গুলোকে তারা কী আশা করে এবং শিল্পের প্রবণতা গুলো কি তা শিখায়। গবেষণা আপনার বাজার কত বড় এবং কতটা আর্কষণীয়, কিভাবে তা দ্রুত গতিতে বেড়ে উঠতে পারে তা জানতে সহায়তা করে। তাছাড়া গবেষণার মাধ্যমে ভবিষতে আপনার ব্যবসা বৃদ্ধি করতে প্রবণতা গুলো কি হওয়া উচিত সে সম্পর্কে ধারণা নিতে সহায়তা করতে পারে।

আপনার পরিকল্পনাটি শেয়ার করুন, এটি নিজের কাছে রাখবেন না।

আপনি যদি আপনার কোম্পানীকে সফল করতে চান, তাহলে সকল কর্মীদেরকে ব্যবসা পরিকল্পনায় সক্রিয় করা উচিত। এটি কোন দলিল নয়, এটি অবশ্যই সকলের দৃষ্টি‡MvPi করা উচিত। ব্যবসার পরিকল্পনা একটি প্রতিষ্ঠানকে নিবদ্ধ করে রাখে, তাই এটি সকল কর্মীদের সাথে শেয়ার করা প্রয়োজন। অনেক কোম্পানী একটি গোপনীয় দলিল হিসেবে পরিকল্পনাটিকে কর্মীদের চোখ থেকে দূরে রাখে।

কিন্তু পরিকল্পনাটি নিয়ে কর্মীদের সাথে আলোচনা করা এবং উপযুক্ত স্থানে সংশোধন করা প্রয়োজন। এর ফলে কর্মীদের প্রতিক্রিয়া ও অর্ন্তদৃষ্টি ত্রুটি পরিহারের পথ খোলে দিতে পারে। পরিকল্পনাটির সাথে সকল কর্মীদের জড়িত করতে পারলে যে কোন গুরুত্বপূর্ণ ফলাফল সকলের জন্য অনেক আনন্দ দায়ক হতে পারে।

পরিষ্কার এবং সংক্ষিপ্ত করুন, ওভারবোর্ডে যাবেন না।

আপনার প্রসারিত বিন্যাস এবং ঝলকানো সাজসজ্জা যুক্ত দলিলের প্রয়োজন নেই। তবে অবশ্যই উদ্বেগ গুলো সুনির্দিষ্ট করতে হবে। আপনার ব্যবসাটি সফল করতে পরিকল্পনাটি বর্ণনা করার জন্য একটি কার্যনির্বাহী সার সংক্ষেপ তৈরি করতে হবে। তারপর আপনার কোম্পানীর শক্তি, দুর্বলতা, বৃদ্ধিও সুযোগ ্এবং হুমকি গুলোর একটি তালিকা তৈরি করতে পারেন।

বাস্তবে ব্যবহার করুন, ফাইলেই সীমাবদ্ধ রাখবেন না

আপনার পরিকল্পনাটি আরোপ করতে ভয় পাবেন না। সঠিক পথে ব্যবসা পরিচালনা করতে আপনার পরিকল্পনাটি ব্যবহার করতে পারেন, এতে ভুলের কিছু নেই। অনেক উদ্যোক্তা পরিকল্পনাটি তৈরি করে তা ড্রয়ারেই ফেলে রাখে যা মস্ত বড় ভুল সিদ্ধান্ত। মনে রাখতে হবে যে, ব্যবসার বৃদ্ধির জন্য পরিকল্পনাটি বাস্তবায়ন করা জরুরী। আপনি চাইলে সময়ের সাথে তাল মিলিয়ে আপনার পরিকল্পনাটি বারবার সংশোধন করতে পারেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here